statistics

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি বিষয়ক কিছু তথ্য

^^ ১ম মেরিটের ভর্তির পর যে যে কলেজে আসন খালি থাকবে ঐ ঐ কলেজের জন্য ২য় মেরিট লিষ্ট প্রকাশ করা হবে।

^^ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ভর্তি কার্যক্রমের ১ম মেধা তালিকার বিষয় পরিবর্তন ও ২য় মেধা তালিকা ০৪/০২/২০১৫ তারিখ বুধবার প্রকাশ করা হবে৷ ওইদিন বিকাল ৪টা থেকে এস.এম.এস এ এবং রাত ৯টা থেকে অনলাইনে ফলাফল পাওয়া যাবে৷

^^ যারা ভর্তির সময় মাইগ্রেশন করেছেন তাদের রেজাল্ট ২য় মেরিটের সাথে প্রকাশ করা হবে।
^^ মাইগ্রেশনের ফলে যাদের বিষয় পরীবর্তন হবে তাদের কে নতুন ভাবে টাকা দিয়ে ভর্তি হতে হবে না। তবে কলেজে যোগাযোগ করতে হবে।
^^ কোটাধারী দের রেজাল্ট রিলিজ স্লিপের ফরম পূরণের পূর্বে প্রকাশ করা হবে৷ যে সকল শিক্ষার্থী ইতোমধ্যে মেধা তালিকায় স্থান পেয়ে প্রার্থিত কোর্সে ভর্তি হয়েছে এবং একই সঙ্গে কোটায় নতুন কোর্স বরাদ্দ পেয়েছে সে সকল শিক্ষার্থী কোটায় বরাদ্দকৃত কোর্সে ভর্তি হতে চাইলে তাদের পূর্বের বর্তি বাতিল হয়ে যাবে৷

^^ যারা ২য় মেরিটেও চান্স পাবেন না তারা রিলিজ স্লিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

^^ ২য় মেরিট লিষ্ট প্রকাশের পর তাদের ভর্তি কার্যক্রম শেষ হলে তার কিছুদিন পর রিলিজ স্লিপ ছাড়বে।আপাতত নাকে তেল দিয়ে ঘুমান। এখনো দেরী আছে অনেক।

^^ রিলিজ স্লিপ কি! খায় নাকি মাথায় দেয়! কিভাবে কি করতে হবে তা আরো পরে বলবো। সময় আসুক।এখন বলা মানে ফাও পেচাল পারা। এখন কষ্ট করে লিখবো,আপনি পড়বেন কিন্তু মনে রাখবেন না। আবার যখন রিলিজ স্লিপ ছাড়বে তখন একই প্রশ্ন আবার করবেন। এত তারাতারি আমি পাগল হইতে চাই না।

^^ শুধু এতুটুকু বলি,রিলিজ স্লিপে নতুন করে পাঁচ টা কলেজ চয়েজ দিতে হয়। এবং প্রতি কলেজের জন্য আলাদা আলাদা সাবজেক্ট চয়েস দিতে হয়।পূর্বে আবেদনের সময় যা করছেন এখানেও অনেকটা তাই করবেন।তখন চয়েস দিছেন ১টা কলেজ এবার দিবেন ৫টা। তবে সরকারী কলেজে চয়েস দিলে নিজ দায়িত্বে দিবেন,বাঁশ খাইলে কর্তৃপক্ষ দায়ি না।

^^ এবার যারা ভর্তি হলেন তাদের অনেকের 2nd Time পাবলিক ভার্সিটির টার্গেট আছে।তাদের প্রশ্ন কোথাও চান্স পেলে ভর্তি বাতিল করবেন কিভাবে।
১.সরকারি কলেজ হয়ে থাকলে ১টা দরখাস্ত আর ৫০০-১০০০টাকা দিয়েই ভর্তি বাতিল করতে পারবেন।কোন সমস্যা ছারাই।
২.বেসরকারী কলেজ হলে খবর আছে। তারা বাতিল করতে দিতে চায় না। দিলেও 10,000-20,000tk তাদের দিতে হবে। অর্থাৎ ভর্তি হতে যদি আপনার 12,000tk লাগে তাহলে বাতিল করতেও 12,000tk এবং ১ম বর্ষের ১বছরের বেতন দিয়ে ভর্তি বাতিল করতে হবে।
^^ ভর্তি বাতিল করতে ১দিনই যথেষ্ট। নিজের কলেজ থেকেই বাতিল করে আপনার যা ডকুমেন্ট তাদের কাছে ছিল তা নিয়ে নিতে পারবেন। গাজীপুর যাওয়া লাগবেনা।

আশাকরি আর কিছু জানার নাই।
-ধন্যবাদ।

পোষ্টটি লিখেছেন: নাঈমুর রহমান দুর্জয়

নাঈমুর রহমান দুর্জয় এই ব্লগে 13 টি পোষ্ট লিখেছেন .

2 comments

  1. আল মামুন মুন্না

    ধন্যবাদ! অনেক গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য শেয়ার করেছেন। আশা করি ভবিষ্যতও আপনার কাছ থেকে এরকম লেখা পাবো….

  2. Naimur Rahman Durjoyy

    দোয়া করবেন ভাই

Leave a Reply

Your email address will not be published.