statistics

চাকরির প্রথম দিনেই যা নিয়ে আলাপ করা উচিত নয়

চাকরির প্রথম দিনটি জীবনের বিশেষ একটি দিন বলে বিবেচিত হতে পারে। এদিন অফিস সংস্কৃতি বুঝে ওঠা এবং সহকর্মীদের সঙ্গে পরিচিতি পর্ব বিশেষ গুরুত্ব রাখে। অন্যান্য প্রসঙ্গে কিছু তথ্য জেনে নেওয়ারও বিশেষ দিন এটি। তবে পেশাজীবন ও কর্মক্ষেত্রবিষয়ক বিশেষজ্ঞ জে টি ও’ডনেলের মতে, প্রথম দিনেই এমন অনেক বিষয় রয়েছে যা নিয়ে আলাপ করা উচিত নয়। প্রশ্নের কাঠামোতে হোক বা আলাপের ফাঁকে, এসব প্রসঙ্গে কথা বলাটা বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। জেনে নিন এমনই ১৩টি বিষয়।
Tips
১. শেষ যেখানে ছিলাম…

আগে অন্য কোথাও চাকরি করে থাকলে তার কথা প্রথম দিনই তুলে আনা উচিত নয়। স্মার্ট থাকাটা জরুরি। কিন্তু অপ্রাসঙ্গিক ও অপ্রয়োজনীয় আলাপচারিতা অন্যের কাছে বিরক্তিকর হয়ে উঠবে।

২. কত দিন পর প্রমোশন হবে?

নতুন চাকরিতে ছয় মাসের শিক্ষানবিশকাল থাকতে পারে। এ সময়টুকু পার হতে দিন। তার আগেই যদি প্রমোশনের প্রসঙ্গ তোলেন, তবে তা মানানসই হয় না।

৩. ওই দিন আমার একটু দ্রুত বেরোতে হয়…

যোগদানের আগে প্রসঙ্গক্রমে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে আলাপ হতে পারে। কিন্তু প্রথম দিনই যদি দ্রুত বেরোনোর দিনক্ষণের কথা জানিয়ে দেন, তবে আপনার দায়িত্ববোধ সম্পর্কে প্রশ্ন উঠতে পারে।

৪. কাদের এড়িয়ে চলতে হবে?

এ ধরনের প্রশ্নে ক্যারিয়ারের ইতি ঘটতে পারে। কারো সঙ্গে মানিয়ে চলা এবং কাউকে এড়িয়ে চলার বিষয় অফিসে থাকতেই পারে। এগুলো ধীরে ধীরে বুঝে নিতে হবে। প্রথম দিনেই প্রশ্ন করে নয়।

৫. আমি এটা এভাবে করতে শিখিনি…

কোনো কর্মী শুনতে চান না যে তিনি কাজটি সম্পর্কে জানেন না। প্রথম দিন আপনি কোনো কাজে ব্যর্থ হতে পারেন। কিন্তু দায়ভার এড়াতে আপনি এভাবে শেখেননি বা কিভাবে শিখেছেন ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরতে যাবেন না।

৬. বিশেষ উপলক্ষে কি বোনাস বা অন্য সুবিধা মেলে?

এর জন্য অপেক্ষায় থাকুন। কিছু ঘটলেই বুঝতে পারবেন। অযথা নিজের সম্পর্কে অন্যের মনে বাজে ধারণা তৈরি করবেন না।

৭. আমাকে এ জিনিসটা বদলে দেওয়া যায় না?

আপনার টেবিলের কিছু পছন্দ না হলে বা তা বেশি পুরনো মনে হলে কিছুদিন কাটতে দিন। তারপর না হয় বদলে নেওয়ার সুযোগ নেবেন।

৮. এর কোনো অর্থ নেই…

নতুন প্রতিষ্ঠানের যেকোনো সংস্কৃতি মেনে নিন। অন্তত প্রথম দিনে প্রতিবাদ করতে যাবেন না। হিতে বিপরীত হতে পারে।

৯. আমার আগের বস ছিলেন বোকা…

হতে পারে বর্তমান বস খুবই স্মার্ট ও কাজপাগল। তাই বলে আগের বস নিয়ে কটু মন্তব্য ভালো কিছু বয়ে আনে না। আপনি হয়তো বর্তমান বসকে নিয়েও ভবিষ্যতে বাজে কথা বলবেন- এমন একটা ধারণার জন্ম হবে।

১০. আমার বাড়িতে সবাইকে দাওয়াত করব…

প্রথম দিন নিশ্চয়ই সবার সঙ্গে এমন সম্পর্ক গড়ে ওঠেনি যে তাদের বাড়িতে নিমন্ত্রণের প্রসঙ্গ তুলবেন। ব্যক্তিগতভাবে সবার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারেন। কিন্তু এমন উপায়ে নয়।

১১. আমার দৃষ্টিভঙ্গি হলো…

সাধারণ নিয়মটি হলো, জানার থাকলে জিজ্ঞাসা করুন। আগেই নিজের মতামতের কথা তুলে ধরতে যাবেন না।

১২. কর্মী হিসেবে আমার কোনো ডিসকাউন্ট আছে?

প্রতিষ্ঠানের কাগজপত্রে এর উল্লেখ থাকবে। সেখানে দেখে নিন। যদি না খুঁজে পান, তবে প্রথম দিনেই জানতে চাওয়ার প্রয়োজন নেই।

১৩. অনেক কাজ করছেন দেখি…

নতুন সহকর্মীকে এ ধরনের কথা বলা সস্তা রসিকতা বলে গণ্য হয়। কারো ব্যস্ততা দেখে এমন মন্তব্য করবেন না। বন্ধুসুলভ সম্পর্ক হওয়ার পর এসব রসিকতা চলে। কিন্তু প্রথম দিনটিতে নয়।

লিখেছেনঃ বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার।

পোষ্টটি লিখেছেন: Topu

এই ব্লগে এটাই এর প্রথম পোষ্ট.

Leave a Reply

Your email address will not be published.