অনলাইনে জমি খারিজ করার পদ্ধতি ২০২৪ । জমির নামজারি পদ্ধতি ২০২৪ | ই নামজারি আবেদন

অনলাইনে জমি খারিজ পদ্ধতি ২০২৩

অনলাইনে জমি খারিজ করার পদ্ধতি ২০২৪ । জমির নামজারি পদ্ধতি ২০২৪ – ই নামজারি আবেদন পদ্ধতি ২০২৪ জানাবো আজকে এই পোস্টের মাধ্যমে। যারা অনলাইনে জমি খারিজ বা ই নামজারি আবেদন করতে চান তাদের জন্য এই পোস্টটি গুরুত্বপূর্ণ । এই পোস্টটি দেখার পর আপনিও অনলাইনে জমি খারিজ এর আবেদন করতে পারবেন। এই ডিজিটাল যুগে এখন সব কিছুই ঘরে বসে করা সম্ভব তারমধ্যে অন্যতম হচ্ছে জমির নামজারি বা জমি খারিজ। এখন ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে জমি খারিজ করা যায়। আজকে এই পোস্টে আমরা জমির খারিজ পদ্ধতি সহ বিস্তারিত খুটিনাটি তথ্য জানাবো। অনলাইনে জামি খারিজ করতে হলে অবশ্যই https://land.gov.bd এই ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে।

অনলাইনে জমি খারিজ পদ্ধতি ২০২৩

ই নামজারি আবেদন

ভুমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক ঘরে বসে জমি খারিজ করার জন্য ব্যাবস্থা করেছে। অনলাইনে জমির খতিয়ান দেখা , অনলাইনে জমির খাজনা পরিশোধ করা সহ ভুমি সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে করা যাবে। আজকে আমরা এখানে দেখাবো কিভাবে অনলাইনে ই নামজারি তথা জমি খারিজ করবেন। এবং অনলাইনে জমি খারিজ করতে কি কি কাগজপত্র লাগবে এবং অনলাইনে জমি খারিজ করতে কত টাকা লাগবে বিস্তারিত তথ্য জানাবো এই পোস্টে। এই পোস্ট দেখার পর আপনি খুব সহজেই জমির খারিজ করতে পারবেন এবং খারিজ সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে পারবেন। চলুন দেখে নেই অনলাইনে জমি খারিজ পদ্ধতি:

মন্ত্রণালয় ভুমি মন্ত্রণালয়
পোস্ট শিরোনাম অনলাইনে জমি খারিজ করার পদ্ধতি ২০২৪ । জমির নামজারি পদ্ধতি ২০২৪ | ই নামজারি আবেদন
আবেদন মাধ্যম অনলাইন
ওয়েবসাইট https://land.gov.bd

অনলাইনে জমি খারিজ করার পদ্ধতি ২০২৪

আপনি যদি অনলাইনে জমি খারিজ পদ্ধতি ২০২৪ দেখার জন্য এই পোস্টে ক্লিক করে থাকেন তবে আপনি সঠিক পোস্টে ক্লিক করেছেন। আজকে এখান থেকে জমি খারিজ করার পদ্ধতি সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা পাবেন এখান থেকে। অনলাইনে জমি খারিজ করার আবেদন করতে হবে land gov bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে । এই ওয়েবসাইটে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপলোড করে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে জমি খারিজ আবেদন সম্পন্ন করতে পারবেন। অনলাইনে জমি খারিজ করা এটিকে অনলাইনের ভাষায় ই-নামজারি/ জমি খারিজ/মিউটেশন বলা হয়। তাই চলুন শুরু করি আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা।

ই নামজারি আবেদন

অনলাইনে ই-নামজারি আবেদন পদ্ধতি ২০২৪ , ই নামজারি করার নিয়ম, ই-নামজারি আবেদন ফরম, ই নামজারি পেমেন্ট করার পথটি, ই নামজারি কিভাবে করতে হয়, ই নামজারি যাচাই কিভাবে করতে হয় এসকল বিষয় নিয়ে এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে। তাই এই আর্টিকেলটি ভালো করে পড়ে ই-নামজারি আবেদন পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন।

অনলাইনে জমি খারিজ করার জন্য যেসব কাগজপত্র লাগবে

  • আবেদনকারীর ছবি 
  • আবেদনকারীর স্বাক্ষর
  • জমি ক্রয় করার দলিল
  • ওয়ারিশ সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • সর্বশেষ খতিয়ান (ক্রয়কৃত জমির খতিয়ান)
  • এন আইডি ।

অনলাইনে জমি খারিজ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই যেকোন একটি কম্পিউটারের দোকানে অথবা নিজের কম্পিউটার/ল্যাপটপের মাধ্যমে করতে হবে। যেহেতু এখানে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা হবে তাই আপনার ফোন ব্যাবহার করলে সঠিকভাবে এটি নাও হতে পারে কারণ প্রয়োজনীয় তথ্য এলোমেলো হতে পারে। তাই আমরা আপনাকে সাজেস্ট করবো ভুমি খারিজ করার জন্য ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার ব্যাবহার করার জন্য। এবং আমরা সাজেস্ট করবো দক্ষ একজন কম্পিউটারের দোকানে গিয়ে এই কাজটি করার জন্য। 

অনলাইনের মাধ্যমে জমি খারিজ করার জন্য উপরোক্ত ফাইল গুলো আপনার প্রয়োজন হবে। এছাড়াও আরও কিছু কাগজপত্র প্রয়োজন হতে পারে। তাই কম্পিউটারে আগে থেকেই এই কাগজপত্র গুলো স্ক্যান করে রাখতে হবে। ফাইল গুলো JPG , PDF ফাইল করে রাখতে হবে।

অনলাইনে জমি খারিজ করার নিয়ম ২০২৪

অনলাইনে জমি খারিজ/ ই নামজারি করার জন্য আপনাকে প্রথমেই https://mutation.land.gov.bd/ এই লিংকে প্রবেশ করতে হবে। প্রবেশ করার পর আপনি নিচের মত ছবি দেখতে পারবেন। এখান থেকে লাল মার্ক করা অপশনটিকে ক্লিক করতে হবে।

”নামজারি আবেদন” এই অপশনটিতে ক্লিক করার পর নিচের ছবির মত একটি ছবি সহ ফরম প্রদর্শিত হবে। এখানে আপনাকে আপনার সঠিক তথ্য দিয়ে এই ফরমটি পূরণ করতে হবে। আপনার বিভাগ সিলেক্ট করে , আপনার জেলা সিলেক্ট  করতে হবে। এবং উপজেলা ও মৌজা সিলেক্ট করতে হবে এছাড়াও যেসকল তথ্য চাওয়া হয়েছে এসব তথ্য দিয়ে পরবর্তি পেজে যেতে হবে।

উপরের নামজারি আবেদন ফরমটি পূরণ করার পর আপনাকে ”পরবর্তি” বাটনে ক্লিক করে পরবর্তি ধাপে যেতে হবে। পরবর্তি পেজে তফসিল ও গ্রহিতার তথ্য দিতে হবে। এবং তার পরবর্তি পেজে দাতার তথ্য ও প্রয়োজনীয় তথ্য আপলোড করতে হবে। এবং সবশেষে পেমেন্ট করতে হবে ও আবেদন সম্পন্ন করতে হবেভ

অনলাইনে খারিজ আবেদন করার পর বর্তমান অবস্থা জানার পদ্ধতি

অনলাইনের মাধ্যমে খারিজ আবেদন শেষ করার পর আপনি অনলাইনের মাধ্যমেই আবেদনের বর্তমনা অবস্থা জানতে পারবেন। আপনার আবেদন গৃহিত হয়েছে কিনা এবং আবেদন বাতিল হলেও তা জানতে পারবেন। এবং কি কারণে আবেদন বাতিল হয়েছে এটিও জানতে পারবেন। খারিজ আবেদন অবস্থা জানতে আপনাকে https://mutation.land.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। 

উপরের লিংকে প্রবেশ করার পর আপনি উপরের ছবির মত দেখতে পাবেন এবং এখান থেকে “আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা” বাটনে ক্লিক করতে হবে। আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা বাটনে ক্লিক করার পর নিচের মত ছবি প্রদর্শিত হবে।

আবেদন করার সময় যেসব তথ্য দেয়া হয়েছিল এবার এখানে এই তথ্য গুলো দিয়ে ”খুজুন” বাটনে ক্লিক করতে হবে। এখানে বিভাগ সিলেক্ট করতে হবে, আবেদন এর আইডি দিতে হবে ও জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার দিয়ে সাবমিট করতে হবে।

অনলাইনে খারিজ অনুমোদন হলে পরবর্তি করণীয়

অনলাইনের মাধ্যমে জমি খারিজ আবেদন করার পর আপনার আবেদন অনুমোদন হলে শুনানিতে অংশগ্রহণ করতে হবে। আপনি নিজে উপস্থিত হয়ে শুনানিতে অংশ্রহণ করতে পারবেন এছাড়াও আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে শুনানিতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

অনলাইনে শুনানিতে অংশগ্রহণ করার পদ্ধতি

অনলাইনে জমি ই নামজারি করার পর অনলাইনে শুনানিতে অংশগ্রহণ করতে আপনাকে http://oh.lams.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে শুনানিতে অংশ্রগহন করতে হবে ।

উপরের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আপনি শুনানির জন্য অনুরোধ পাঠাতে পারবেন। এবং মামলার শুনানির তালিকা দেখতে পারবেন উপরের এই লিংক থেকে। 

অনলাইনে জমি খারিজ করতে কত টাকা লাগে

অনলাইনে জমি খারিজ বা ই নামজারির আবেদন করতে আপনাকে নির্দিষ্ট ফি দিতে হবে। প্রথমে আবেদন করার কোর্ট ফি বাবদ ২০ টাকা, নোটিশ জারি ফি বাবদ ৫০ টাকা মোট ৭০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। এবং আবেদন অনুমোদন হওয়ার পর হালনাগাদ ফি বাবদ ১০০০ টাকা  এবং প্রতি খতিয়ান সরবরাহ ফি বাবদ ১০০ টাকা অনলাইনে পরিশোধন করতে হবে। ফি পরিশোধ হয়ে গেলে অনলাইন থেকে কিউআর কোডযুক্ত অনলাইন ডিসিআর (ডুপ্লিকেট কার্বন রিসিট) সংগ্রহ করা যাবে।

উপসংহার

আমরা আজকে এই পোস্টে অনলাইনের মাধ্যমে জমি খারিজ / ই নামজারি করার পদ্ধতি দেখিয়েছি। প্রত্যেকটি ধাপে ধাপে কি করতে হবে তা আমরা বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেছি। এই পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে জমি খারিজ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারবেন। আশা করি এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি উপকৃত হবেন।





About মোঃ মিলন ইসলাম 1008 Articles
মোঃ মিলন ইসলাম , বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র "চিফ ইডিটর" হিসেবে নিয়োজিত আছেন। এছাড়া, লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন আল মামুন মুন্না।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*